২৮ অক্টোবর ২০২০ ইং, ১৩ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম:
নরসিংদীতে কনস্টেবল হতে এএসআই পদে সদ্য পদোন্নতি প্রাপ্ত সদস্য কে র‌্যাংক ব্যাচ ব্যাজ পরিয়ে দিচ্ছেন ,পুলিশ সুপার মাধবদীতে ডোবা থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার নরসিংদীতে শারদীয় দুর্গাপূজায় সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসব করার জন্য জেলা পুলিশের আহ্বান মাধবদীতে পূজামন্ডপ পরিদর্শনে নরসিংদী জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন শিবপুরে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা

চরসিন্দুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতনের নেতৃত্বে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য টিপুর উপর সন্ত্রাসী হামলা

  নরসিংদীর সংবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক/নরসিংদীর সংবাদ-

বৃহস্পতিবার ২৮ মে ২০২০:

নরসিংদীর পলাশ উপজেলার চরসিন্দুর বাজারে গত ২৬ শে মে আনুমানিক সন্ধা ৮টার দিকে নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাহফুজুল হক টিপুর উপর অতর্কিত সন্ত্রাসী হামলা চালায় চরসিন্দুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতনসহ রতনের লোকজন।

জানা যায় নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাহফুজুল হক টিপু পলাশ উপজেলার বর্তমান এমপির একজন প্রিয়আস্থাভাজন ।
মাহফুজুল হক টিপু গণমাধ্যমকর্মীকে জানায় পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা বিনিময় কালে চরসিন্দুর বাজারের শিকদার ফার্মেসিতে যাই ফার্মেসীর মালিক আমার পূর্ব পরিচিত হওয়ায় দোকানের মালিক আমাকে ভিতরে বসতে বলে। ওরে আমি দোকানে গিয়ে বসার কিছুক্ষণ পর চরসিন্দুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতন ও সাবেক এমপির ছোট ভাই ছোটন খান , সৌরভ , মশিকুর, আলমগীর, রাজন সহ ২০/২৫ জনের একদল সন্ত্রাসী বাহিনী আমাকে উদ্দেশ্য করে অতর্কিত হামলা চালায়।

তৎক্ষণাৎ দোকানের মালিক শাটার বন্ধ করে দেয় এই ঘটনার খবর পেয়ে আমার শ্যালক রনি,ও আমার বাড়ির ছোট ভাই রবিউল গাজী ,সুমন মোল্লা, শফিকুল দর্জি, কাউসার মিয়া সহ আরো কয়েকজন লোক আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে ওই সন্ত্রাসী বাহিনী তাদেরকেও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ।পরে দোকানের বাহির দিক থেকে শাটারে গুলি করতে থাকে বলে মাহফুজুল হক টিপু জানান ।এই ঘটনায় খবর পেয়ে পলাশের সংসদ সদস্য ডাক্তার আনোয়ারুল আশরাফ খান দিলীপ পলাশ থানা পুলিশের সহযোগিতায় মাহফুজুল হক টিপুকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে চরসিন্দুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন রতনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান।
:
চরসিন্দুর বাজারে সিকদার ফার্মেসিতে বসে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছিল। পরে আমার লোকজন তাকে ফার্মেসির সাঁটার বন্ধ করে দিয়ে ভিতরে আটকে রাখে। টিপু প্রতিদিন লোকজন নিয়ে বাজারে মহড়া দিয়ে বেড়ায়। এবং বাজারে আধিপত্য বিস্তারের চেষ্টা করে। আমি বাধা দিলে টিপুর সন্ত্রাসী বাহিনী আমার ওপরে আমার লোকদের উপর হামলা চালায়। আমি সহ আমার পাঁচ কর্মীর উপর গুরুতর আহত করে, এ ব্যাপারে আমার ভাই বাদী হয়ে পলাশ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি । উক্ত ঘটনায় উভয়পক্ষের আহতরা চিকিৎসাধীন রয়েছে।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে