১১ আগস্ট ২০২২ ইং, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম:
বিএমএসএফ ঢাকা জেলার সদস্য গোলাম রাব্বানীর মরদেহ সোনারগাঁওয়ে উদ্বার মাগুরাবাসীর স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে আগামী ২০২৩ সালের অক্টোবরের মধ্যে,রেলপথ মন্ত্রী ২৪ তম বিসিএস ফোরাম এর পিরোজপুর জেলা কমিটি গঠন নির্যাতিত সাংবাদিকদের আশ্রয়স্থল বিএমএসএফ দশ পেরিয়ে এগারোতে শিবপুরে ঐতিহ্যবাহী ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

নরসিংদীর হাজিপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ব্যবসায়ী সুজিত সূত্রধরকে কুপিয়ে হত্যা আহত ২

  নরসিংদীর সংবাদ

মোস্তাক আহমেদ, নিজস্ব প্রতিবেদক-
নরসিংদী সদর হাজিপুরের সাবেক ইউপি সদস্য সুজিত সূত্রধর (৫৬) কে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এসময় আহত হয়েছেন তার ছেলেসহ ২ জন।
বুধবার অনুমানিক রাত ৮টার দিকে সদর উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের হাজীপুর কাঠ বাজারে নিজ দোকানে এই হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহত সুজিত সূত্রধর হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও হাজীপুর কাঠ বাজারের ব্যবসায়ী ছিলেন।

পরিবারের সদস্যরা জানান, প্রতিদিনের মতো হাজীপুর কাঠ বাজারে নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসা ছিলেন সুজিত সূত্রধর ও তার ছেলে সুজন সূত্রধরসহ অন্যান্যরা। এসময় মুখোশধারী কয়েকজন দুর্বৃত্ত ধারালো চাইনিজ কুড়াল দিয়ে এলোপাথাড়ি সুজিত সূত্রধর কে কোপাতে থাকে। এসময় তার ছেলে সুজন সূত্রধর ও দ্বীন ইসলাম নামে আরও একজন এগিয়ে গেলে তাদের ওপরও হামলা চালায়। পরে সুজন সূত্রধরের ডাক চিৎকারে লোকজন আসলে অবশেষে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুজিত সূত্রধরকে মৃত ঘোষণা করেন।
গুরুতর আহত দুইজন সুজন সূত্রধর ও দ্বীন ইসলামকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

নিহত সুজিত সূত্রধরের ছেলে আহত সুজন সূত্রধর বলেন, যারা আমার বাবাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে তাদের সাথে জমিজমা নিয়ে একই এলাকার প্রভাবশালী প্রতিপক্ষের বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে বাবা সুজিত সূত্রধর বাদী হয়ে মামলা করেন। এতে প্রতিপক্ষের লোকজন আমাদের ওপর ক্ষুব্ধ ছিল। এই জেরে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ১৫/২০ জনের একদল সন্ত্রাসী পূর্ব পরিকল্পিতভাবে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দোকানে এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আমার বাবাকে হত্যা শেষে পালিয়ে যায়। হাসপাতালে নেয়ার পর আমার বাবা সুজিত সূত্রধরকে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মহাআলম সরকার জানান এই খুনি চক্রটি হাজীপুরে প্রায় এক ডজন খুন করেছে কিন্তু তাদের কোন বিচার হয়নি প্রকৃত খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি ।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান বলেন, আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সুজিত সূত্রধরের সাথে একই এলাকার কতিপয় লোকজনের পূর্ব বিরোধ ছিল সুনেছি। তবে পূর্ব বিরোধ নিয়ে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে কী না, সে বিষয়ে আমরা এই মুহুর্তে নিশ্চিত নই। ঠিক কী কারণে কে বা কারা হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আশা করছি দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে ।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে