২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং, ৪ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম:
মাধবদীর গাজীরগাঁওয়ে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণ,বিপাকে এলাকাবাসী কক্সবাজারের পথে সোনারগাঁয়ে সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির গাড়িতে আগুন নরসিংদীতে নিত্যপ্রয়োজনীয় বাজার দর স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত মাধবদী স্বর্ন শিল্পী সমিতির উদ্যোগে ২৭ তম বিশ্বকর্মা পূজা অনুষ্ঠিত নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজারদর নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসন নরসিংদীর ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত

নরসিংদী সরকারী কলেজের ছাত্র-সংসদ নির্বাচন এখন সময়ের দাবি-আজিজুল ইসলাম সিফাত

  নরসিংদীর সংবাদ

আজিজুল ইসলাম সিফাত ঃ-প্রায় ১০ বছর যাবত অকার্যকর নরসিংদী সরকারী কলেজ এর ছাত্র সংসদ।২০০৯ সালের ২০ জুন শেষবারের মত ছাত্র সংসদ নির্বাচন হয়েছিলো,তারপর থেকে আজ অবধি আর হয়ে উঠেনি ছাত্র সংসদ নির্বাচন।

শিক্ষা শান্তি ঐক্য প্রগতি এ বানী চিরন্তন। যে কোন কল্যানময় মহৎ প্রচেষ্ঠার ফল সূদুরপ্রসারী এ কথা অনস্বীকার্য।আমি মনে করি গনতান্ত্রিক উপায়ে ছাত্রনেতৃত্ব তৈরীর মাধ্যম হচ্ছে ছাত্র সংসদ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেমন স্কুল,কলেজ ও বিশ্ব-বিদ্যালয়ে শুধুমাত্র শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা,মেধা ও বুদ্ধিবৃত্তির উৎকর্ষ সাধন এবং শিক্ষা ভিত্তিক কর্মকাণ্ডের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে ছাত্র সংসদ গঠনের প্রচলন শুরু হয়।

ছাত্র সংসদ শুধু নেতৃত্ব তৈরীর মন্ত্র নিয়ে গঠন হয়না।ছাত্র সংসদ ছাত্র-ছাত্রীদের নানামুখী সমস্যা নিরসন সহ ছাত্রছাত্রী দের প্রতিনিধিত্বকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভূমিকা গ্রহন করা,সাহিত্য,সংস্কৃতি,ক্রিড়া পাশাপাশি শান্তির অভয় অরণ্যে পরিনত করবে তার গালিচাকে , সে প্রত্যয়ে কাজ করে ছাত্র সংসদ ।

নরসিংদী সরকারী কলেজ এ জেলার একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান।২৭ অক্টোবর ১৯৪৯ সালে তৎকালীন নরসিংদীর জমিদার জিতেন্দ্র কিশোর মল্লিক কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন,কলেজটি প্রতিষ্ঠার পর নরসিংদী ও এর আশপাশ বি-বাড়ীয়া জেলার নবীনগর ও বাঞ্চারামপুর, নারায়নগঞ্জের আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ, গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকার ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের শিক্ষা জীবনকে এগিয়ে নেবার সুযোগ পায়। এ কলেজে পড়ালেখা করে আজ প্রতিষ্ঠিত এমন অনেক ব্যক্তিই রয়েছেন। জেলার ঐতিহ্যবাহী এ কলেজে ১৯৭২ সালে প্রথম বাংলা অনার্স কোর্স চালু হয় । বর্তমানে কলেজে ১৯টি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু আছে এবং ১৬ টি বিষয়ে স্নাতকোত্তর চালু রয়েছে।কলেজে বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা ২৭ হাজারেরও অধিক এবং এদের শিক্ষাদানে কর্তব্যরত আছে ১১০ জন শিক্ষক।

উল্লেখ্য,সরকারী কলেজের ছাত্র সংসদ অকার্যকর প্রায় ১০ বছর ধরে। ২০০৯ সালের ২০ জুন (২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষ)’র নরসিংদী সরকারী কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচন হয়। তৎকালীন নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান শামীম নেওয়াজ ভিপি এবং নরসিংদী কলেজ শাখার ছাত্র দলের সভাপতি বিল্লাল হোসেন রনি জিএস নির্বাচিত হন। কিন্তু ২০১০ সালে ১৫ মার্চ জিএস রনি দূর্বৃত্তদের হাতে নিহত হলে, ছাত্র সংসদের কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়ে।ছাত্রসংসদের মেয়াদ ১ বছর হলেও জিএস রনির মৃত্যুর পর গণসাক্ষরের মাধ্যমে মেয়াদ আরও এক বছর বাড়ানো হয়,কিন্তু এ বাড়ানো মেয়াদেও ছাত্র সংসদ কার্যকর কোন ভূমিকা রাখতে পারেনি।
ঐতিহ্যবাহী ক্যাম্পাসে আজ অচল হয়ে পড়ে আছে ছাত্র সংসদ,কলেজ ক্যান্টিনসহ অনেক কার্যক্রম!

যারা বর্তমানে কলেজে-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী,তারাই তো আগামী দিনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেশ ও জাতিকে নেতৃত্ব দেবে। আর ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব যদি যোগ্য ও গণতান্ত্রিক পরিবেশে গড়ে না ওঠে, তাহলে কী করে তারা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এগিয়ে নেবে…?
তাই গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ আর রাজনীতি চর্চার জন্য শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টিকরা ঐকান্তিক প্রয়োজন বলে মনে করি।

আমরা বিশ্বাস করি,নির্বাচনের মাধ্যমে সংসদ গঠিত হলে যেমন সরকার ও বিরোধী দলের অংশগ্রহণে গনতন্ত্র কায়েম হয় তেমনি গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার জন্য শিক্ষাঙ্গনে গণতান্ত্রিক আবহ তৈরি করতে ছাত্রসংসদের কোন বিকল্প নেই।

শিক্ষাঙ্গন গুলোতে তৈরি হচ্ছে আগামী দিনের নেতৃত্ব,
সুতরাং শিক্ষাঙ্গনে গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টিতে নির্বাচিত ছাত্র সংসদ এবং অচিরেই নরসিংদী সরকারী কলেজে ছাত্র-সংসদ নির্বাচন দেওয়া এখন সময়ের দাবী…

-আজিজুল ইসলাম সিফাত
কর্মী,নরসিংদী জেলা ছাত্রলীগ।
সভাপতি,নরসিংদী জেলা সজিব ওয়াজেদ জয় পরিষদ।

প্রতিদিনের খবর পড়ুন আপনার ইমেইল থেকে
ওপরে